অনলাইন ও অফলাইনে করার মতো ২০টি পার্ট টাইম জব।

আমরা কেউ-ই শুধু পড়াশুনা করে বা নির্দিষ্ট কোনো কাজ করে জীবনটা কাটিয়ে দিতে চাই না। নির্দিষ্ট এই কাজগুলো ছাড়াও অন্যান্য কার্যক্রমে অংশ নিয়ে জীবনটাকে আরো সুন্দর করে তুলতে চাই। স্বনির্ভরশীল হতে আমরা অনেকেই পার্ট টাইম জব বেছে নেই। এই আর্টিকেলে আমি আপনাদের ২০টি পার্ট টাইম জব সম্পর্কে বলবো যেখানে আপনি প্রতিদিন মাত্র ২ থেকে ৩ ঘন্টা কাজ করেই খুব ভালো আয় করতে পারবেন।

২০টি পার্ট টাইম জব

আমি প্রথমে ১০টি অনলাইন পার্ট টাইম জব এবং পরে ১০টি অফলাইন পার্ট টাইম জব সম্পর্কে এখানে আলোচনা করবো। তবে সব দিক বিবেচনা করলে দেখা যায় অনলাইন জাবগুলোই সবচেয়ে বেশি ভালো।

অনলাইন পার্ট টাইম জব

এখানে আমি ১০টি অনলাইন জবস সম্পর্কে আলোচনা করেছি যেগুলো আপনি পার্ট টাইম জব হিসেবে করতে পারবেন। এই কাজগুলো আপনি নির্দিষ্ট কোনো সময় ছাড়াই ঘরে বসে করতে পারবেন।

গেট পেইড ফর ক্লিকিং অ্যাড

যখন আপনি জানতে চাইবেন কোন্ কাজটি করে আপনি খুব সহজেই ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করতে পারবেন, তখন আপনার সামনে যে কাজটি সবার আগে চলে আসবে সেটি হলো Clicking job। এখানে আপনি অ্যাড ক্লিকিং এবং কোনো অ্যাড ১৫-৩০ সেকেন্ড দেখার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই টাকা আয় করতে পারবেন। এই কাজের জন্য আপনি অনেক রকম সাইট খুঁজে পাবেন ইন্টারনেটে। কিন্তু আপনি যদি এটিকে পার্ট টাইম জব হিসেবে বেছে নেন, তাহলে আমি আপনাকে কিছু বিশ্বস্ত সাইটের নাম বলছি যেগুলো নিয়মিত টাকা পেইড করে থাকে।

ClixSense – অ্যাকাউন্ট খুলুন

Paidverts – অ্যাকাউন্ট খুলুন

Dollarclix –  অ্যাকাউন্ট খুলুন

আরও দেখুন:  এখানে ক্লিক করুন

পার্ট টাইম আর্টিকেল রাইটিং:

আপনি পার্ট টাইপ জব হিসেবে আর্টিকেল লিখাকেও বেছে নিতে পারেন, যদি আপনার কোনো কিছু নিয়ে লিখতে ভালো লাগে। পার্ট টাইম জব হিসেবে আমার কাছে এটাই সেরা। কারণ, আর্টিকেল লিখে আপনি প্রতি মাসে আয় করতে পারবেন কমপক্ষে ৫০ হাজার টাকা। এই পার্ট টাইম কাজটি করলে আপনি প্রতিনিয়ত নতুন নতুন অনেক কিছু সম্পর্কে জানতেও পারবেন আর টাকা তো আয় হবেই। যে সব ওয়েবসাইটে আর্টিকেল রাইটের সবচেয়ে বেশি কাজ পাবেন, সেগুলো হল-

আপওয়ার্ক – অ্যাকাউন্ট খুলুন

ফিয়েভার – অ্যাকাউন্ট খুলুন

ফ্রি-ল্যান্সার – অ্যাকাউন্ট খুলুন

কনটেন্ট রাইটিং

আর্টিকেল রাইটিং ও কন্টেন্ট রাইটিং এর মধ্যে খুব বেশি প্রার্থক্য না থাকলেও, দুইটা কিছুটা ভিন্ন। আর্টিকেল রাইটিং কোন একটি নির্দিষ্ট্য টপিকের উপর লেখা আর কন্টেন্ট রাইটিং হচ্ছে বিস্তৃত। যত ধরণের লেখা-লেখির কাজ আছে, তার সবই কন্টেন্ট রাইটিং এর মধ্যে পড়ে।

আপনি যদি লিখতে ভালোবাসেন, তাহলে আপনার জন্য বেস্ট পার্ট টাইম জব হবে কনটেন্ট রাইটিং। আপনি চাইলে Indeed, Quikr ইত্যাদি সাইটে কাজ করতে পারেন অথবা ফাইভার, আপওয়ার্ক এবং অন্যান্য ফ্রি-ল্যান্সিং সাইটে জয়েন করতে পারেন।

অনলাইন টিউটরিং

যদি Skype এর মাধ্যমে আপনি ভিডিও চ্যাট করে অভ্যস্ত থাকেন, তাহলে অনলাইনে আপনি টিউটরিং করেও টাকা আয় করতে পারবেন। আর আপনি যদি যে কোনো একটি বিষয়েও দক্ষ হয়ে থাকেন, তাহলে এই কাজটি করতে আপনার কোনো অসুবিধা হবে না। যে সব ওয়েবসাইটে অনলাইন টিউটরিং এর কাজ পাবেন-

টিউটর – অ্যাকাউন্ট খুলুন

ইন্ডিড – অ্যাকাউন্ট খুলুন

টিউটর ভিস্তা – অ্যাকাউন্ট খুলুন

ফ্লেক্স জবস্ – অ্যাকাউন্ট খুলুন

ডাটা এন্ট্রি অথবা ফরম ফিলিং

ইন্টারনেটে অনেক রকমের ডাটা এন্ট্রি জবস রয়েছে যেগুলো থেকে আপনি নিজের দক্ষতা বা পছন্দ অনুযায়ী কাজ বেছে নিতে পারেন। আপনার যদি ভালো টাইপিং স্পিড থাকে তাহলে পার্ট টাইম জব হিসেবে এটি করতে পারেন। অনলাইন জুড়ে বিভিন্ন ধরণের ডাটা এন্ট্রির কাজ রয়েছে। সেগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে আমার আগের অনলাইন বা অফলাইনে করতে পারেন এ ১৫টি ডাটা এন্ট্রি জব লেখাটি পড়ে নিতে পারেন।

পার্ট টাইম ফটোগ্রাফি

ছবি তোলা যদি আপনার শখ হয়ে থাকে তাহলে পার্ট টাইম জব হিসেবে আপনি ফটোগ্রাফি করতে পারেন। অনলাইনে ছবি বিক্রি করে আয় করার অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলো থেকে অনেকেই টাকা আয় করছে, আপনিও করতে পারেন।

অফলাইন পার্ট টাইম জব

যদি আপনার বাড়িতে কম্পিউটার অথবা ইন্টারনেট কানেকশন না থাকে, সেক্ষেত্রে আপনি এখানে উল্লেখিত ১০টি অফলাইন পার্ট টাইপ জব করতে পারেন।

পার্ট টাইম অফিস জব

অফলাইন পার্ট টাইম হিসেবে কোনো অফিসে কাজ করা সবচেয়ে ভালো। আমাদের দেশে এমন অনেক অফিস রয়েছে, যেখানে আপনি দিনের নির্দিষ্ট কিছু সময় কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন। যেমন, আপনি এখন যে ওয়েবসাইটে আমার লেখাটি পড়ছেন অর্থাৎ টেক ট্রেইনিতেই পার্ট টাইম আর্টিকেল লেখার জবটি করতে পারেন।

অফলাইন ডাটা এন্ট্রি

বাড়ির বাইরে কাজ করতে চাইলে আপনি এই কাজটি বেছে নিতে পারেন যদি আপনার টাইপিং স্পিড ভালো হয়। বিভিন্ন কোম্পানি রয়েছে যেখানে আপনি ৫-৬ ঘন্টা কাজ করার সুযোগ পাবেন।

হোম টিউটর

ভার্সিটিতে পড়া অবস্থায় টাকা আয় করার সহজ মাধ্যম হিসেবে এই পেশাকে বেছে নেন অনেকেই। আজকাল অনেক অনলাইন সাইট বা ফেসবুক গ্রুপ রয়েছে যেখানে আপনি সাইন আপ বা জয়েন করলে তারাই আপনাকে টিউশন খুঁজে দিবে।

নেটওয়ার্ক মার্কেটিং

পার্ট টাইম জব হিসেবে এই কাজটি করলে আপনি বেশ ভালো টাকা আয় করতে পারবেন যদি কোম্পানিটি হয় নতুন এবং এর প্রোডাক্টগুলো হয় ভালো।

ক্যান্ডেল মেকিং

বর্তমান সময়ে ক্যান্ডেল তৈরী করাকে অনেকেই পেশা হিসেবে নিয়েছে, আপনিও নিতে পারেন। কারণ আমরা প্রতিনিয়ত বিভিন্ন উৎসবে ক্যান্ডেল ব্যবহার করে থাকি। আপনি ঘরে বসে বিভিন্ন রকম ক্যান্ডেল তৈরী করে বাজারে বিক্রি করতে পারেন।

ট্রান্সলেটর

যদি ভাষার উপর আপনার ভালো দক্ষতা থাকে, তবে আপনি পার্ট টাইম জব হিসেবে ট্রান্সলেটিং কাজটি করে টাকা আয় করতে পারেন। এমন না যে শুধু ইংরেজি ভাষা জানতে হবে, হতে পারে অন্য যে কোনো ভাষা।

পার্ট টাইম রাইডার

আপনি যদি কোনো যানবাহন চালাতে পারেন, হতে পারে বাইসাইকেল, কার, মোটর বাইক তাহলে এই কাজটি আপনার জন্য। আমাদের দেশে এখন এমন অনেক কোম্পানি রয়েছে যেখানে আপনি পার্ট টাইম বা ফুল টাইম রাইডার হিসেবে কাজ করতে পারবেন।

ইভেন্ট প্ল্যানিং

পার্ট টাইজ জব হিসেবে আপনি Event planning এর কাজ করতে পারেন। ভাবছেন এই কাজ হয়তো আপনি করতে পারবেন না। আচ্ছা আপনি কি কখনও বন্ধুর বার্থডে বা আপনার বাসার কোনো ইভেন্ট প্ল্যানিং করেননি? তাহলে এটাও ঠিক একই কাজ।

মিউজিক ইন্সট্রাক্টর

আপনি যদি ভালো গান জানেন বা কোনো বাদ্যযন্ত্র বাজাতে পারদর্শী হয়ে থাকেন, তাহলে পার্ট টাইমে আপনি এই কাজটি করে বেশ ভালো টাকা আয় করতে পারবেন।

হোম-বেইসড ফুড বিজনেস বা বেকারি

রান্না-বান্না করা বা নতুন কোনো খাবার তৈরী করতে আপনার ভালো লাগলে আপনি food business করতে পারেন। যা করে আপনি প্রতি মাসে অনেক টাকা আয় করতে পারবেন যদি আপনার খাবারের মান ভালো হয়।

আর্টিকেলটি পড়ে আপনি কিছু অনলাইন এবং অফলাইন পার্ট টাইম জব সম্পর্কে জানতে পারলেন যা আপনাকে স্বনির্ভরশীল করে তুলতে সাহায্য করবে। এর বাইরেও আপনি অনেক কাজ খুঁজে পাবেন। কিন্তু আমি এখানে সবচেয়ে ভালো কাজগুলো নিয়েই কথা বলেছি। আশা করি আপনি পছন্দমতো যে কোনোটি বেছে নিয়ে এখন থেকেই কাজ শুরু করে দিবেন। কোন কাজটি আপনি করতে চাচ্ছেন বা করছেন আমাদের কমেন্ট করে জানাবেন।

কৃতজ্ঞতায়: টেকট্রেইনি